জলপাইগুড়িতে বিদ্যুৎ নিয়ে ক্ষুব্ধ মুখ্যমন্ত্রী

0
46

জলপাইগুড়ির তিলাবাড়িতে মঙ্গলবার ছিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। সেখানে তখন চারবার বিদ্যুৎ চলে গিয়েছিল। বুধবার জেলার প্রশাসনিক বৈঠকে ক্ষুব্ধ মমতা বলেন, বিদ্যুৎ দফতরের সরবরাহ নিয়ে অভিযোগ আসছে। সেখানে ইউনিয়নবাজি চলছে। তিনদিনের মধ্যে এব্যাপারে রিপোর্ট চেয়েছেন তিনি। না হলে সরকার কড়া ব্যবস্থা নেবে বলেও হুঁশিয়ারি দেন তিনি। মুখ্যসচিবকে বিদ্যুৎ দফতরের সঙ্গে বসতেও বলেছেন তিনি। বনবিভাগের কাজেরও সমালোচনা করেন তিনি। সরকারি আধিকারিকদের উদ্দেশে তিনি বলেন, আপনাদের কথা শোনার ধৈর্য কম। একটু ভালোভাবে সমস্যার কথা শুনুন। কোনও কাজ ফেলে রাখা যাবে না। তিলাবড়িতে এক জনসভার উত্তরবঙ্গের জন্য তাঁর সরকারের উদ্যোগের উল্লেখ করে মমতা বলেন, এখানে ৭০ ভাগ কাজ হয়ে গিয়েছে, যা আগে কখনও হয়নি। জলপাইগুড়ি, আলিপুরদুয়ার, শিলিগুড়িকে নেপাল, ভুটান, বাংলাদেশের সঙ্গে সড়কপথে যুক্ত করা হয়েছে। চা বাগান শ্রমিকদের মাইনে ১০০ টাকার বেশি বাড়ানো হয়েছে। ডানকান চা বাগানে বিজেপির লোক এসে মিথ্যে বলে সব নিয়ে নিয়েছে। কিছুই হয়নি। নির্বাচনের সময় নানা কথা বলে পরে ভুলে যায়। বামফ্রন্ট দারিজিলিং, জলপাইগুড়ির জন্য কিছু করেনি। জনসভার বিজেপিকে ফের এক হাত নিলেন মুখ্যমন্ত্রী মমতা বন্দ্যোপাধ্যায়। তিনি বলেন, কেউ কেউ ভাগাভাগির রাজনীতি করছে। কালা দিন চলছে। তৃণমূল জোড়ার কাজ করে। আচ্ছে দিনের নামে সব বরবাদ করে দিচ্ছে। আদিবাসীদের জমি দখল করে সভা করছে। ছাত্র-যুবদের সতর্ক করে দেন তিনি।