চকের রামমন্দির

0
299

সদ্য অযোধ্যা মামলার সমাধান হয়েছে দেশের সর্বোচ্চ আদালতে। এরপরই নিজের ছোটবেলায় সামান্য চক ও আঠা দিয়ে বানানো রামমন্দিরের প্রতিকৃতি সোশাল মিডিয়ায় শেয়ার করলেন পুরুলিয়া শহরের এক শিল্পী। এরপরই সেটা রীতিমতো ভাইরাল হয়েছে।
পুরুলিয়া লোকোশেড পাড়ার বাসিন্দা সুরজ কেশরী। তাঁর কথায়, সেই ১৯৯১ সালে তিনি তখন সদ্য মাধ্যমিক পাশ করেছিলেন। সেইসময় রামমন্দির আন্দোলনের জোয়ার চলছে। ফলে সুরজবাবুর কিশোর মনে এই ঘটনার প্রভাব পরে। তাই চক ও আঠা দিয়েই তিনি বানিয়ে ফেলেছিলেন দেড় ফুটের কাল্পনিক রামমন্দির।

তবে সেই সময় সোশাল মিডিয়া ছিল না, তাই বিতর্কের ভয়ে এতদিন ঘরের এক কোনায় রাখা ছিল এই কাল্পনিক রামমন্দিরের ভাস্কর্যটি।
এবার সুপ্রিম কোর্টের রায়ে সব বিতর্কের অবসান হয়েছে। তাই পেশায় পুরুলিয়া সৈনিক স্কুলের আর্ট শিক্ষক সুরজ কেশরী ২৪ বছর আগে ছোটবেলায় তৈরি এই ভাস্কর্যটির ছবি সোশাল মিডিয়ায় পোস্ট করলেন। শিল্পীর কথায়, এবার প্রকৃত রাম মন্দির তৈরি হবে বলে তিনি খুশি, তবে মুসলিমরাও মসজিদের জন্য জমি পাচ্ছেন সেটাও খুব ভালো সিদ্ধান্ত।