বিধায়ক পদ খারিজের মামলায় বিচারকদেরই মতভেদ

0
58

সাময়িক স্বস্তিতে তামিলনাড়ুর এআইএডিএমকে শিবির। আয়ের সঙ্গে সঙ্গতিহীন সম্পত্তির অভিযোগে এআইএডিএমকের ১৮ জন বিধায়কের রায় ঘোষণা হল না বৃহষ্পতিবারেও। অর্থাত্‌ মাদ্রাজ হাইকোর্ট কোনও সিদ্ধান্তে আসতে পারেনি৷ এই ঘটনায় মতপার্থক্য দেখা দিয়েছে ডিভিশন বেঞ্চের দুই বিচারপতি ইন্দিরা ব্যানার্জী ও এম সুন্দরের মধ্যেই। ফলে বাধ্য হয়েই অচলাবস্থা কাটাতে অন্যতম সিনিয়র বিচারপতি জি রমেশের রায় জানতে চাওয়া হয়েছে। প্রথম দুই বিচারপতির যেকোনও একজনকেই সমর্থন জানাবেন তৃতীয় বিচারপতি। আদালতের এই রায়ে আপাতত স্বস্তিতে এআইএডিএমকে-এর ১৮ বিধায়ক ৷প্রসঙ্গত গত বছর তামিলনাড়ু বিধানসভার অধ্যক্ষ ১৮ জন বিধায়কের প্রতি অনাস্থা এনে ছিলেন৷ তাদের বিধায়ক খারিজ করা হয়৷ মামলা গড়ায় আদালত পর্যন্ত। আজ রায়দান না হওয়ায় এআইএডিএমকের পক্ষ থেকে জানানো হয়েছে তাঁরা এই ১৮ বিধায়ককে সমর্থন জানিয়ে যাবেন৷ যতদিন না তাঁদের বিরুদ্ধে কোনও রকম অপরাধ প্রমাণিত হয়৷ কেননা তাঁদেরকে বিধায়ক পদপ্রার্থী করেছিলেন আম্মা (প্রয়াত জয়ললিতা)৷ যদিও ডিএমকের দাবি, ১৮ জন বিধায়কের বাধায়কের বাধায়ক পদ খারিজ হলে তামিলনাড়ু বিদানসবায় সংখ্যালঘু হয়ে পড়বে এআইএডিএমকে৷ তাই বিধায়কদের বাঁচাতে উঠে পড়ে লেগেছে তাঁরা।