পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় সম্পন্ন অরুণ জেটলির শেষকৃত্য

0
240

রবিবার পূর্ণ রাষ্ট্রীয় মর্যাদায় প্রাক্তন কেন্দ্রীয় মন্ত্রী অরুণ জেটলির শেষকৃত্য সম্পন্ন হল। দিল্লির নিগমবোধ শ্মশানঘাটে এদিন উপস্থিত ছিলেন বিজেপির শীর্ষ নেতা-নেত্রীরা। স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী অমিত শাহ, প্রতিরক্ষামন্ত্রী রাজনাথ সিং, উপ রাষ্ট্রপতি বেঙ্কাইয়া নাইডু, দিল্লির মুখ্যমন্ত্রী অরবিন্দ কেজরিওয়াল, উপ মুখ্যমন্ত্রী মণীশ সিসোদিয়া সহ বিজেপি নেতা লালকৃষ্ণ আডবানি, নির্মলা সীতারামন, জেপি নাড্ডা, স্মৃতি ইরানী। অন্যদিকে কংগ্রেস নেতা অনুরাগ ঠাকুর, কপিল সিব্বাল, জ্যোতিরাদীত্য সিন্ধিয়াও এদিন প্রয়াত অরুন জেটলিকে শেষ শ্রদ্ধা জানাতে শ্মশানঘাটে উপস্থিত ছিলেন। এই মুহুর্তে জি-৭ শীর্ষ সম্মেলনে ফ্রান্সে রয়েছেন প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি। সূত্রের খবর, তিনি জেটলির শেষকৃত্যে যোগ দিতে দেশে ফিরতে চেয়েছিলেন। কিন্তু অরুন জেটলির পরিবারই তাঁকে বারণ করেন।

এদিন সকাল ১০টা নাগাদ দিল্লির কৈলাশ কলোনির বাড়ি থেকে তাঁর দেহ নিয়ে আসা হয়েছে বিজেপির সদর দফতরে। সেখানেই বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের নেতা-নেত্রী আসেন প্রয়াত বিজেপি নেতাকে শেষে শ্রদ্ধা জানাতে। দুপুর ২টো নাগাদ বিজেপির সদর দফতর থেকে তাঁর মরদেহ শোভাযাত্রা করে যমুনার তীরে নিগমবোধ ঘাটে নিয়ে আসা হয়। সেখানেই বিকেল ৪টে নাগাদ হল শেষকৃত্য। এদিন সকাল থেকেই দিল্লির বিজেপির সদর দফতরে ছিলেন স্বরাষ্ট্রমন্ত্রী তথা বিজেপর সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। প্রধানমন্ত্রী নরেন্দ্র মোদি এই মুহুর্তে বাহারিন সফরে রয়েছেন, তাই সেখান থেকেই তিনি শোকবার্তা জানিয়েছেন। ট্যুইটার বার্তায় তিনি লেখেন, ‘ভারতেই পারছি না, আমি যখন এতদূরে রয়েছি তখনই আমার বন্ধু বিয়োগ হল। দিনকয়েক আগেই আমার বোন সুষমা স্বরাজকে হারিয়েছিলাম, আজ হারালাম বন্ধুকে’। গতকালই অরুণ জেটলির বাড়িতে গিয়ে তাঁকে শেষ শ্রদ্ধা জানিয়েছেন, কংগ্রেস সভানেত্রী সোনিয়া গান্ধি ও ছেলে রাহুল গান্ধি। ছিলেন প্রাক্তণ প্রধানমন্ত্রী মনমোহন সিং, প্রফুল্ল পটেল, মোতিলাল ভোরা, চন্দ্রবাবু নাইডু, শরদ পাওয়ারের মতো নেতৃত্ব।