মাটি মাফিয়াদের কবলে বনভূমি

0
150

মাটি মাফিয়াদের দৌরাত্ম্যে বিপন্ন মুর্শিদাবাদ জেলার একমাত্র দামি ফরেস্ট বাগদাবড়া। প্রশাসন নীরব। ফারাক্কার ফিডার ক্যানেলের পশ্চিম পাড়ে রয়েছে মুর্শিদাবাদের বাগদাবড়া ফরেস্ট।
বাগদাবড়া ফরেস্ট ঝাড়খন্ড ও পশ্চিমবঙ্গের সীমানায়। এই বন কাজু, মহুয়া, শাল, সেগুন ও ইউক্যালিপটাসের গাছে ভর্তি। ফরাক্কা ও সামশেরগঞ্জের মধ্যে ডবল রেল লাইনের কাজ চলছে। অপরদিকে, ফরাক্কা ব্যারেজের গঙ্গার ওপর সেতু নির্মাণের কাজ চলছে দ্রুত গতিতে। এরজন্য মাটি ও লাল মোরামের প্রয়োজন।
মাটি মাফিয়ারা অবৈধ ভাবে প্রশাসনের নাকের সামেনই বাহাদুরপুর গ্রামপঞ্চায়েতের বাগদাবড়া ফরেস্ট থেকে লাল মোরাম কেটে চলেছে। এনটিপিসির ফাঁড়ির সামনে দিয়ে গাড়ি গাড়ি লাল মোরাম চলে যাচ্ছে বিভিন্ন প্রান্তে। যেভাবে বাগদাবড়া ফরেস্টে লাল মোরাম কাটা হচ্ছে এক এক জায়গায় বড় বড় পুকুর তৈরি হয়েছে। যে কোনও সময় সম্পূর্ণ বাগদাবড়া ফরেস্ট মাটি মাফিয়াদের দৌরত্ম্যের কারণে ধ্বংস হয়ে যাওয়ার আশঙ্কা রয়েছে।
গ্রামবাসীদের দাবি, অবিলম্বে মাটি মাফিয়াদের দৌরাত্ম্য বন্ধ না হলে যেভাবে জেসিবি মেশিন দিয়ে মাটি কাটা হচ্ছে তাতে গোটা বাগদাবড়া ফরেস্ট শেষ হয়ে যাচ্ছে। মুর্শিদাবাদের মানচিত্র থেকে বিলুপ্ত হয়ে যাবে জেলার একমাএ দামি কাজু বাদাম ও মহুয়া গাছের ফরেস্ট।
ক্ষোভ প্রকাশ করেছেন ফারাক্কা পঞ্চায়েত সমিতির সভাপতি আঞ্জুমারা খাতুন। তিনি এরজন্য সরাসরি অভিযোগের আঙ্গুল তুলেছেন ফরাক্কার বিএলআরও এবং বন দফতরের আধিকারিকের বিরুদ্ধে। তিনি জানান, বিঘা বিঘা কৃষিজমি জেসিবি দিয়ে মাটি কাটার কাজ চলছে। বাগদাবড়া ফরেস্ট পর্যন্ত ধ্বংসের মুখে। বারবার ফরাক্কার বিএলআরওকে বলা সত্বেও মাটি মাফিয়াদের দৌরাত্ম্য বন্ধ করা সম্ভব হচ্ছে না। মাটি মাফিয়াদের সঙ্গে ফরাক্কার বিএলআরওর গোপন আঁতাতে এই কাজ চলছে।
বাগদাবড়া ফরেস্ট বাঁচাতে মাটি মাফিয়াদের দৌরাত্ম্য বন্ধ করার জন্য ফরাক্কার বিএলআরও বিরুদ্ধে মুর্শিদাবাদ জেলাশাসকের কাছে লিখিত অভিযোগ জানানো হবে। ফারাক্কার বিডিও রাজশ্রী চক্রবর্তী বিষয়টি খতিয়ে দেখার আশ্বাস দিয়েছেন।