১৪ মে পঞ্চায়েত ভোট, গণনা ১৭ মে

0
856

আর তিনদিন পর ১৪ মে সকাল ৭টা থেকে বিকেল ৫টা পর্যন্ত পঞ্চায়েত নির্বাচনের ভোটগ্রহণ। ভোটগণনা হবে ১৭ মে সকাল ৮টা থেকে। জানিয়ে দিল রাজ্য নির্বাচন কমিশন। ৩১ হাজার ৮৩৬টি গ্রাম পঞ্চায়েত, ৬২২টি পঞ্চায়েত সমিতিতে ভোট হবে। বৃহস্পতিবার হাইকোর্টের প্রধান বিচারপতি জ্যোর্তিময় ভট্টাচার্যের ডিভিশন বেঞ্চ জানিয়ে দেয়, নির্বাচন কমিশনই ঠিক করবে পঞ্চায়েত ভোট কবে হবে। তবে ভোটে কোনও প্রাণহানি হলে বা সম্পত্তি নষ্ট হলে ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। নির্বাচনে অশান্তি হলে, তার দায় বর্তাবে রাজ্যের আধিকারিকদের ওপর। সেক্ষেত্রে পঞ্চায়েতের নিরাপত্তা নিয়ে যে আধিকারিকরা রিপোর্ট দিয়েছেন, তাঁদের বেতন থেকেই ক্ষতিপূরণ দিতে হবে। শুধু তাই নয়, ওই আধিকারিকদের বেতন, ক্ষতিপূরণ দেওয়ার ক্ষেত্রে পর্যাপ্ত না হলে, তাঁদের সম্পত্তিও বাজেয়াপ্ত করা হতে পারে বলে জানিয়েছে প্রধান বিচারপতির ডিভিশন বেঞ্চ। রাজ্যের সর্বত্র নিরাপত্তার পর্যাপ্ত ব্যবস্থা নিশ্চিত করতে হবে। তবে এব্যাপারে আদালতের কিছু করণীয় নেই।

অন্যদিকে, সুপ্রিম কোর্ট ই-মনোনয়ন নিয়ে কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চের রায় স্থগিত করে দিয়েছে। ১৪ মে ভোট হতে কোনও বাধা নেই বলে জানিয়ে দিয়েছিল সুপ্রিম কোর্টও। মামলার পরবর্তী শুনানির দিন ধার্য হয়েছে ৩ জুলাই। একইসঙ্গে সুপ্রিম কোর্ট ৩৪ শতাংশ আসনে বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় প্রার্থীদের জয়ী ঘোষণা করার ওপরেও স্থগিতাদেশ দিয়েছে। ই-মনোনয়ন নিয়ে হাইকোর্টের রায়ের উপর স্থগিতাদেশ চেয়ে বুধবারই সুপ্রিম কোর্টে গিয়েছিল রাজ্য নির্বাচন কমিশন। পরিষদীয় মন্ত্রী পার্থ চট্টোপাধ্যায় বললেন, ‘আদালতের রায়ে আমরা খুশি। কিছু মানুষ পঞ্চায়েত ভোটকে বিলম্বিত করার চেষ্টা করছে।এখন একই বৃন্তে তিনটি ফুল-বিজেপি, সিপিএম, কংগ্রেস। তারা একত্রিত হয়ে মানুষের অধিকারকে খর্ব করার চেষ্টা করছে।