হরপ্পার যুগল কঙ্কাল

0
103

হরপ্পার একটি সমাধিতে পাওয়া গেল এক যুগলের দুর্লভ কঙ্কাল। ৪৫০০ বছরের পুরানো। সেইসঙ্গে তা উস্কে দিল আরও অনেক সম্ভাবনাও।
এখনকার হরিয়ানার রাখিগড়ি গ্রামে হরপ্পার আমলের কঙ্কাল দুটি মিলেছে। তিনবছর ধরে ভারতীয় ও কোরিয়ান বিজ্ঞানীরা এই অতি দুর্লভ দেহাবশেষের কালসূচি আর তাদের মৃত্যু সম্ভাব্য কারণ নিয়ে গবেষণা করেছেন।
জার্নালে প্রকাশিত নিবন্ধ তাঁরা জানাচ্ছেন, ওই পুরুষ ও মহিলা দুজনে দুজনের দিকে ঘনিষ্টভাবে রয়েছে। মনে হচ্ছে, দুজনেরই মৃত্যু হয়েছে একই সময়ে। কীভাবে মৃত্যু হল তা রহস্যে মোড়া। তারা আধ মিটার গভীরে একটি বালি খাদে সমাধিস্থ হয়েছে। পুরুষটির উচ্চতা ৫ ফুট ৮ ইঞ্চি, মহিলাটির ৫ ফুট ৬ ইঞ্চি। মৃত্যুর সময় দুজনেই সুস্থ ছিলেন। আঘাতের কোনও চিহ্ন পাওয়া যায়নি।
ঐতিহাসিক জোড়া সমাধি সবসময়ই আগ্রহ তৈরি করেছে। ইতালিতে নিওলিথিক আমলের আলিঙ্গনাবদ্ধ যুগল দেহাবশেষ পাওয়া গিয়েছিল। রাশিয়ায় এমনই এক যুগলের কঙ্কাল মিলেছিল যারা হাত ধরাধরি করে ছিল। গ্রিস ৬ হাজার বছরের কঙ্কাল পাওয়া গিয়েছিল যারা একে অপরকে জড়িয়ে ধরেছিল।
রাখিগড়ির ওই সমাধিতে পাওয়া গিয়েছে কিছু মাটির পাত্র, পাথর বসানো গয়না, যা হরপ্পার অন্য সমাধিতে সাধারণত পাওয়া গিয়েছিল। সমাহিত করার গোটা প্রক্রিয়াই ছিল সাদামাটা। বিজ্ঞানীদের ধারণা, এই যুগল থাকত ১২০০ একরের এক জনবসতিতে। ভারত ও পাকিস্তানে যেসব হরপ্পার নির্দন পাওয়া গিয়েছে, রাখিগড়িরটি তার মধ্যে সবথেকে বড়। পাকিস্তানের মহেঞ্জোদারোর থেকেও তা অনেক বড়।
তবে এই প্রথম নয়, গুজরাতের লোথালে একটি বালি খাদান থেকে পাওয়া গিয়েছিল একটির ওপর আরেকটি নারী-পুরুষের কঙ্কাল। মহিলার মাথায় ছিল আঘাতের চিহ্ন। একদল ঐতিহাসিক বলেছিলেন, পুরুষটির মৃত্যুর পর মহিলাটি আত্মঘাতী হয়েছিল।
রাখিগড়িতে ৭০টি সমাধি পাওয়া গিয়েছে। তারমধ্যে ৪০টিতে খনন হয়েছে। কিন্তু সবথেকে বেশি কৌতূহল জাগিয়েছে ওই যুগলের সমাধি।