জোড় দেবেন প্রেমদেবতা

0
116

সঙ্গী খুঁজে দেবেন ভালোবাসার দেবতা। চিনা পুরাণ অনুযায়ী, প্রেমদেবতার নাম ইয়েউ লাও। তার হাতে রয়েছে বিবাহের বই। তিনিই সেখান থেকে জীবনসঙ্গী বেছে লালসুতোয় বেঁধে দেবেন।
কাহিনি এমন, তাং রাজতন্ত্রের সময় একজন প্রেমদেবতাকে তার ভাবী বউকে দেখাতে বলেছিল। সে নিজে দেবতায় আস্থাশীল ছিল না। তার হবু স্ত্রী আক্রান্ত হয়। পরে যখন সত্যিই সেই মেয়েটিকে সে বিয়ে করে, তার গায়ে ছিল ক্ষতচিহ্ন।
তারপর থেকেই নাকি এই ঘটক দেবতার রমরমা। গোটা এশিয়া জুড়ে এই দিনেই তার মূর্তির সামনে প্রার্থনা হয়। সবথেকে জনপ্রিয় মূর্তিটি রয়েছে তাইপের নগরদেবতা মন্দিরে। মূর্তিটি ৪৩ সেন্টিমিটারের। ফল মিলবে কেবল বিশ্বাসীদেরই। রোজ প্রায় শপাঁচেক ভক্তের ভিড় হয় এখানে। তবে ভ্যালেন্টাইনস ডে বা নববর্ষের দিন ভিড় হাজার ছাড়িয়ে যায়। সফল জোড়িরা আনে বিবাহের নানারকম কুকি, কেক, চকোলেট।
প্রার্থনার প্রক্রিয়া বেশ জটিল। সময় লাগে আধঘণ্টারও বেশি। পর্ণামী কেনা, ধূপ কেনা, সস্ত্রীক নগরদেবতার পুজো, প্রেমদেবতারা পুজো, সফল দম্পতিদের রেখে রাখা যাওয়া বিয়ের কেক খাওয়ার মতো ১২টি ধাপে পুজোপর্ব শেষ হয়। নিজের ঠিকুজিকুলজি ছাড়াও যাকে সঙ্গী হিসেবে পেতে চায় তারও যাবতীয় তথ্য দিতে হয়। তারপর লাল সুতোয় প্রেমদেবতার মাদুলি লাগিয়ে রাখতে হয় যতক্ষণ না তাদের প্রার্থনা পূর্ণ হয়।