ফেসবুকে আপনার তথ্য মুছে ফেলার উপায় কী?

0
81

কেমব্রিজ অ্যানালিটিকা কেলেঙ্কারির খবর প্রকাশের পর থেকেই ফেইসবুকে ব্যক্তিগত তথ্যের নিরাপত্তা নিয়ে জন্ম হয়েছে নতুন উদ্বেগ। প্রায় ৮ কোটি ৭০ লাখ বলে জানিয়েছে ফেসবুক নিজেই। এখন কেউ যদি উদ্বিগ্ন হয়ে ফেসবুকের কাছে থাকা তার সব তথ্য মুছে চান, তাহলে তার কী করণীয়?
যদি আপনার অ্যাকাউন্টটি মুছেই ফেলেন তাহলে আপনার ফেসবুক অ্যাকাউন্টটি আর দেখা যাবে না। আরেকটি পথ হচ্ছে অ্যাকাউন্ট ‘ডিঅ্যাক্টিভেট’ করে দেওয়া। এর মাধ্যমে সাময়িকভাবে এই উদ্বেগ থেকে রেহাই পাওয়া যেতে পারে। আবার আক্যাউন্ট চালু করলে সব তথ্য আবার দেখতে পাবেন। কিন্তু কেউ যদি এমন কিছু নিয়ে উদ্বিগ্ন হয়ে থাকেন যে ফেসবুক তার সম্পর্কে অনেক বেশি তথ্য জানে, সেক্ষেত্রে তার জন্য সবকিছু সরিয়ে ফেলাই সবথেকে ভালো। এমন অবস্থায় কী করার আছে? এ বিষয়ে পরামর্শ দেওয়া হয়েছে মার্কিন সংবাদমাধ্যম সিএনবিসি’র এক প্রতিবেদনে।
অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলা নিয়ে ফেসবুক এই কথাগুলো বলে থাকে-
“আপনি যখন আপনার অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলেন, অন্যরা তা আর ফেসবুকে দেখতে পাবে না। আপনার ছবি, স্ট্যাটাস আপডেট বা ব্যাকআপ ব্যবস্থায় সংরক্ষিত আপনার পোস্ট করা সব কিছু মুছে দেওয়ার প্রক্রিয়া শুরু করতে এরপর ৯০ দিন সময় লাগতে পারে। আমরা যখন এই তথ্য মুছে দিচ্ছি, তখন ফেসবুকে অন্য কেউ এই তথ্য দেখতে পাবেন না।”
“ফেসবুকে আপনার করা কিছু বিষয় আপনার অ্যাকাউন্টে জমা থাকে না। যেমন, আপনার অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলার পরও একজন বন্ধু আপনার কাছ থেকে মেসেজ পেতে পারেন। আপনার অ্যাকাউন্ট মুছে ফেলার পরও এই তথ্য রয়ে যায়।”
এই মুছে ফেলার অনুরোধ জানানোর পর ব্যবহারকারী মত পাল্টে সিদ্ধান্ত পরিবর্তনও করতে চাইতে পারেন। সে কারণে তথ্যাবলী পুরোপুরি মুছে ফেলতে খানিকটা দেরি করা হয় বলেও জানিয়েছে সোশাল জায়ান্টটি। এই মত পাল্টানোর সময় হলো দুই দিন। এই সময়ের মধ্যে কেউ লগইন করে আবার মুছে ফেলার ওই অনুরোধ বাতিল করতে পারবেন। কিন্তু একবার এই সময় পার হয়ে গেলে ব্যবহারকারীর সব তথ্যও চলে যাবে। এক্ষেত্রে সতর্কতার বিষয় হচ্ছে, কেউ যদি এই পুরো প্রক্রিয়ায় সব তথ্য মুছে ফেলেন তবে ওই অ্যাকাউন্ট পুনরায় চালু করা আর সম্ভব হবে না, হারিয়ে যাবে অ্যাকাউন্টটিতে থাকা সব তথ্যও।
আরেকটি বিষয় মনে রাখা ভালো। অ্যাকাউন্ট মুছে ফেললেই যে আপনার সব তথ্য ফেসবুক মুছে ফেলবে এমনটি না ভাবাই ভালো। কিছু তথ্য কখনোই মুছে ফেলা হবে না। কোনও না কোনও ডেটাবেসে এগুলো রয়ে যাবে। তবে, ফেইসবুক বলছে, ওইসব তথ্য কোন অ্যাকাউন্টের বা কার, সেই যোগসূত্রগুলো মুছে ফেলা হয়। আর সে কারণেই সামাজিক মাধ্যমে কোনও কিছু পোস্ট করার আগেই সতর্কতার সঙ্গে পোস্ট করাই সম্ভবত সবচেয়ে ভালো। (জনকণ্ঠ)