ময়নাপুরের মা দুর্গা

0
53

বাঁকুড়া বিষ্ণুপুরের শেষ মল্ল রাজা চৈতন্য সিংহের দেওয়ান ছিলেন চণ্ডীচরণ মুখোপাধ্যায়। তাঁর আমলেই জমিদারি সত্ত্ব লাভ করে মুখোপাধ্যায় পরিবার। সালটা ১৭৯১। সেই বছরই বিষ্ণুপুরের ময়নাপুর গ্রামে দুর্গাপুজোর সূচনা করেন জমিদার চণ্ডীচরণ মুখোপাধ্যায়।
প্রথমে মাটির তৈরি দুর্গা দালানেই হয়েছিল দেবীর আরাধনা। যদিও জমিদার মশাই সপরিবারে থাকতেন পাকা দালানে। এক রাতে জমিদার মশাই পেলেন স্বপ্নাদেশ। পাকা দালান বানাতে হবে, সেইমতো ২৩০ বছর আগে বানানো হয় পাকা ঠাকুরদালান। সেই থেকে ময়নাপুরের জমিদার বাড়িতে হয়ে আসছে দুর্গাপুজো।
বিষ্ণুপুরের ময়নাপুরের মুখোপাধ্যায় পরিবারে বর্তমানে জমিদারির রঙ নেই। তবুও নিয়ম মেনেই মুখোপাধ্যায়দের ঠাকুরদালানে পুজোর রঙ লাগে। এখন জমিদারির জমক অনেক কমেছে। তবুও পুজোর ঐতিহ্য কিন্তু চিরন্তন। ইতিমধ্যেই খড়ের কাঠামোর উপর মাটির প্রলেপ পড়েছে জমিদার বাড়িতে। তিন পুরুষ ধরে দুর্গার মূর্তি বানাচ্ছেন মৃৎশিল্পীরা। প্রাসাদের ধ্বংসস্তূপও যেন সারা বছর ধরে অপেক্ষায় থাকে, কবে আসবে শরৎ। জীবনজীবিকার তাগিদে দূরদূরান্তে ছড়িয়ে পড়েছে জমিদারবাড়ির সদস্যরা। কিন্তু পুজা এলেই তাঁরা ভিড় করেন পুরানো জমিদার বাড়ির জীর্ণ দালানে। পুজোর এই কয়েকটা দিন গমগম করে ওঠে ময়নাপুরের জমিদারবাড়ি।