সুপ্রিম কোর্টের তোপে উপ রাজ্যপাল

0
60

জঞ্জাল ফেলার জায়গা না থাকলে রাজনিবাস মার্গে (উপ রাজ্যপালের অফিস) ফেলুন। দিল্লির জঞ্জাল সাফাই ব্যবস্থপনা নিয়ে ফের সুপ্রিম কোর্টের তোপের মুখে উপ রাজ্যপালের অফিস। ‘জরুরি পরিস্থিতি’ চলছে দিল্লিতে এমনটাও মন্তব্য করেন বিচারপতি। সাফাই ব্যবস্থাপনা নিয়ে সঠিক তথ্য দিতে না পারায় ভৎসর্না করা হয় অ্যাডিশনাল সলিসিটর জেনারেলকেও। বিচারপতি মদন বি লকুর ও দীপক গুপ্তার ডিভিশন বেঞ্চ জানান, গড়ে প্রতিদিন ৩৬০০ টন জঞ্জাল তৈরি হচ্ছে প্রতিদিন। যার মধ্যে মাত্র ১৮০০ টন বিভিন্ন জঞ্জাল কেন্দ্রে ফেলা হচ্ছে। বাকিটা জমছে। রীতিমতো ভয়ঙ্কর। উত্তরে এএসজি জানান, অন্যান্য এলাকায় কাজ চললেও সোনিয়া বিহার এলাকার মানুষজন সেখানে ময়লা ফেলতে বাধা দিচ্ছেন। ডিভিশন বেঞ্চের প্রশ্ন, সমস্যা সমাধানের জন্য এতদিন কোনও কার্যকরী পদক্ষেপ নিতে দেখা যায়নি কেন? প্রত্যেক মানুষেরই অধিকার আছে দূষণমুক্ত পরিবেশ বসবাস করার। সোনিয়া বিহারে অপেক্ষাকৃত আর্থিকভাবে পিছিয়ে পড়া মানুষের বাস। তাঁদের ঘরের সামনে জঞ্জাল জমা হলে তাঁরাও তো আক্রান্ত হবেন। তাহলে রাজনিবাস মার্গে ফেলুন। কেউ প্রশ্ন তুললেই জেলে ভরবেন? পরের ঘাড়ে দোষ না চাপিয়ে সমাধান বের খুঁজুন।