শেষ পর্যন্ত সংশয় দূর করতে নির্বাচন কমিশন

0
51

শেষ পর্যন্ত সংশয় দূর করতে এগিয়ে এল নির্বাচন কমিশন। আগামী ১২ মে সর্বদলীয় বৈঠকে ইভিএম নিয়ে নিজেদের বক্তব্য জানাবে নির্বাচন কমিশন।
ইভিএম নিয়ে গত এক দশক ধরেই নানা অভিযোগ তুলেছে বিরোধী দলগুলি। নির্বাচনে হেরে যাওয়ার পর ইভিএমে কারচুপির অভিযোগ তোলা ভারতীয় রাজনীতিতে নতুন কিছু নয়। অতীতেও দেখা গেছে যখনই যে দল নির্বাচনে পরাজিত হয়েছে তারাই ইভিএম কারচুপির অভিযোগ এনেছে। তবে এ বছর মার্চ মাসে পাঁচ রাজ্যের নির্বাচনের ফল বেরোনোর পর প্রায় সমবেতভাবেই ইভিএম কারচুপির অভিযোগ তোলেন বিরোধীরা। প্রথমে মায়াবতী তারপর অরবিন্দ কেজরিওয়াল এবং শেষে প্রায় সব বিরোধী দলই। তবে অভিযোগ অনেক বেশি গুরুত্ব পায় সাম্প্রতিক সময়ে উত্তরাখন্ড হাইকোর্টের দুটি রায়ের পর। প্রথমে বিকাশনগর বিধানসভা এবং পরে আরও ছয় বিধানসভার নির্বাচনের ফল নিয়ে সংশয় প্রকাশ করে ভোটে ব্যবহৃত ইভিএম সংরক্ষণের নির্দেশ দেয় আদালত। সংশয় ছড়িয়ে পড়ে সাধারণ মানুষের মধ্যেও। এবং অনেক রাজনৈতিক দলই দাবি জানাতে থাকে এই বিষয়ে সংশয় দূর করতে এগিয়ে আসতে হবে নির্বাচন কমিশনকেই। ইভিএমে কারচুপি সম্ভব নয় এই ধরণের দু একটি বিক্ষিপ্ত মন্তব্য ছাড়া এতদিন পর্যন্ত প্রায় নিশ্চুপই ছিল কমিশন। এতদিনের নীরবতার পর বৃহস্পতিবার নির্বাচন কমিশনের পক্ষ থেকে জানানো হয় আগামী ১২ মে এই বিষয়ে সর্বদলীয় বৈঠক হবে। বৈঠকে অংশগ্রহণ করবে বিভিন্ন রাজনৈতিক দলের প্রায় দেড়শ প্রতিনিধি। সেই বৈঠকেই কমিশনের পক্ষ থেকে স্পষ্ট করে দেওয়া হবে চুপি সম্ভব নয়। এর আগে অরবিন্দ কেজরিওয়াল যিনি নিজে আইআইটি থেকে ইঞ্জিনিয়রিং ডিগ্রি পেয়েছেন দাবি করেছিলেন ২ ঘন্টা সময় পেলে তিনি প্রমাণ করে দেবেন ইভিএমে কারচুপি করা সম্ভব। ইভিএম শুরক্ষা আরক্ষা বাড়াতে ইতিমধ্যেই ভিভি প্যাট ব্যবহারের সিদ্ধান্ত নেওযা হয়েছে। আগামী ২০১৯ সালের লোকসভা নির্বাচনে সমস্ত বুথেই ভিভি প্যাট যুক্ত ইভিএম মেসিন ব্যবহার করার সিদ্ধান্ত নিয়েছে নির্বাচন কমিশন। বলা হচ্ছে ভিভি প্যাট মেশিনে ভোটার যেহেতু নিজেই দেখে নিতে পারবেন কোথায় ভোট পড়ছে সেখানে সমস্ত সংশয় দূর হবে।

Submit your review
1
2
3
4
5
Submit
     
Cancel

Create your own review

CALCUTTA NEWS
Average rating:  
 0 reviews