দিলীপেই আস্থা বঙ্গ বিজেপির

0
539

ফের একবার রাজ্য সভাপতি হিসেবে দিলীপ ঘোষকেই নির্বাচিত করল রাজ্য বিজেপি নেতৃত্ব। গত কয়েকদিন ধরেই এই সম্ভাবনা জোরালো হচ্ছিল। বৃহস্পতিবার কলকাতার ন্যাশনাল লাইব্রেরিতে বিজেপির সাংগঠনিক সভায় দিলীপ ঘোষের নামেই শিলমোহর দিলেন রাজ্য নেতারা। এদিন বিনা নির্বাচনেই দিলীপ ঘোষ দ্বিতীয়বারের জন্য রাজ্য সভাপতি হলেন। যদিও এর আগে তিনবছরের বদলে চারবছর তিনি রাজ্য সভাপতির দায়িত্বভার সামলেছেন। কারণ লোকসভা নির্বাচনের কথা মাথায় রেখে একবছর তাঁর সময়সীমা বাড়িয়ে দিয়েছিল দিল্লির শীর্ষ নেতৃত্ব। বৃহস্পতিবার রাজ্য সভাপতি নির্বাচন প্রক্রিয়া দেখতে এসেছিলেন কেন্দ্রীয়মন্ত্রী তথা বিজেপির পর্যবেক্ষক কিরেন রিজিজু। তাঁর হাতেই মনোনয়নপত্র জমা দেন দিলীপ ঘোষ। এদিন বেলা ১১টার পর আর কেউ মনোনয়ন জমা না দেওয়ায় দিলীপ ঘোষই ফের সভাপতি থেকে গেলেন।

এর আগে ১২ জানুয়ারি কলকাতায় এসে রাজ্য বিজেপির কোর কমিটির ১৫ জন সদস্যের সঙ্গে আলাদা আলাদা আলোচনা করে গিয়েছিলেন অমিত শাহর দূত ভূপেন্দ্র যাদব। তিনি এই নিয়ে বিস্তারিত রিপোর্ট অমিত শাহর হাতে তুলেও দিয়েছিলেন। এরপরই বুধবার দিলীপ ঘোষ এক সাংবাদিক সম্মেলনে দাবি করেন, তাঁকে মনোনয়নপত্রে সই করতে বলা হয়েছে দিল্লির তরফে। ফলে তখনই বোঝা গিয়েছিল দ্বিতীয়বারের জন্য তাঁকেই সবাপতি দেখতে চাইছে দিল্লি। সামনেই রাজ্যের ১১২টি পুরসভায় ভোট, এরমধ্যে কলকাতা, হাওড়া ও শিলিগুড়ি পুরনিগম রয়েছে। এরপর ২০২১ সালে রাজ্য বিধানসভা ভোট। ফলে দ্বিতীয়বারেও দিলীপ ঘোষের সামনে কঠিন চ্যালেঞ্জ। রাজ্য সভাপতি হিসেবে গত লোকসভায় অভূতপূর্ব সাফল্য পাওয়ায় তিনি পুরস্কার পেলেন বলেই মনে করছে বাংলার রাজনৈতিক মহল। দ্বিতীয়বার রাজ্য সভাপতি নির্বাচিত হয়েই তাঁর হুঙ্কার, বিজেপি কোনও পরিস্থিতে ময়দান ছাড়বে না। কর্মীদের মনোবলই বিজেপির শক্তি। কর্মীদের আত্মত্যাগেই ১৮ জন সাংসদ হয়েছেন বাংলায়। এবার লক্ষ্য বিধানসভা।