দিল্লি পুলিশকে তুলোধোনা আদালতের

0
1445

জামা মসজিদ কি পাকিস্তানে? দিল্লি পুলিশকে প্রশ্ন দিল্লির তিসহাজারি আদালতের। মঙ্গলবার ভীম সেনা প্রধান চন্দ্রশেখর আজাদের জামিনের আবেদনের শুনানিতে আদালত বলেছে, আপনারা এমন ব্যবহার করছেন যেন দিল্লির জামা মসজিদ পাকিস্তানে। যদি তা পাকিস্তানেও হয়, তা হলেও সেখানে গিয়ে প্রতিবাদ জানানো যেতে পারে। পাকিস্তান তো অবিভক্ত ভারতেরই অংশ ছিল। ২০ ডিসেম্বর রাতে জামা মসজিদের গেট থেকে গ্রেফতার করা হয় চন্দ্রশেখরকে। নয়া নাগরিকত্ব আইনের প্রতিবাদ মিছিলে নেতৃত্ব দেওয়ার জন্য তিনি সেখানে গিয়েছিলেন। সেই মিছিল পুলিশ আটকালে তা হিংসাত্মক হয়ে ওঠে। চন্দ্রশেখর এখন বিচারবিভাগীয় হেফাজতে। তিনি অসুস্থ। তাঁর বক্তব্য, তাঁকে মিথ্যা অভিযোগে গ্রেফতার করা হয়েছে। সরকারি কৌঁসুলি বলেন, আজাদ সোশাল মিডিয়ায় ধরনায় যাওয়ার বিষয়টি জানিয়েছিলেন। বিচারক তখন বলেন, ধরনায় আপত্তির কী আছে? প্রতিবাদ করায় দোষের কী আছে? এটা সবার সাংবিধানিক অধিকার। এতে হিংসা কোথায়? আপনি কি সংবিধান পড়েছেন? সোশাল মিডিয়ায় পোস্টগুলি কোনওটাই অসাংবিধানিক নয়। চন্দ্রশেখর নিজে আইনজীবী। তাঁদের মধ্যে থেকেই অনেকে নেতা-রাজনীতিক হয়েছেন। তাঁরা শিক্ষিত। উল্লেখ্য, ৯ জানুয়ারি এই মামলায় ধৃত ১৫ জনকে জামিন দেওয়া হয়েছে। বুধবার ফের এই মামলার শুনানি।