অবশেষে স্বস্তি, শনিবার থেকে খুলছে দাড়িভিট স্কুল

0
21

কাটল অচলাবস্থা। পূজোর ছুটি শেষে আগামি শনিবার থেকে খুলবে দাড়িভিট হাইস্কুল। স্বস্তিতে প্রায় ১,৯০০ পড়ুয়া ও তাঁদের অভিভাবকরা। সামনেই বার্ষিক পরীক্ষা। সেই সঙ্গে রয়েছে মাধ্যমিক ও উচ্চমাধ্যমিকের টেস্ট। দীর্ঘদিন স্কুল বন্ধ থাকায় উদ্বিগ্ন হয়ে ওঠেন অভিভাবকরা। এই পরিস্থিতিতে আদৌ পরীক্ষা নেয়া সম্ভব হবে কিনা, তা নিয়েও সংশয় দেখা দেয়। প্রশাসনের তরফ থেকে দফায় দফায় বৈঠক হয়। কিন্তু তাতেও জট কাটেনি। অবশেষে, নিহত দুই প্রাক্তন পড়ুয়ার পরিবার আন্দোলন থেকে সরে আসায়, সেই ফাঁড়া কাটল। নিহত ছাত্র তাপস বর্মনের বাবা বাদল বর্মন জানান, ছাত্র ছাত্রীদের ভবিষ্যতের কথা ভবে আমরা আমাদের ধরনা আন্দোলন তুলে নিচ্ছি। আমাদের সন্তান তো আর ফিরে আসবে না। কিন্তু এই ১৯০০ শিক্ষার্থীর ভবিষ্যত উজ্জ্বল হোক। একই কথা বলেন নিহতে আরেক ছাত্র রাজেশের বাবা নীলকমল সরকার। তাঁদের এই সিদ্ধান্তকে স্বাগত জানিয়েছেন উত্তর দিনাজপুরের জেলাশাসক অরবিন্দকুমার মিনা। তিনি বলেন, সত্যিই এটা খুব ভাল সিদ্ধান্ত। তাঁরা অন্যান্য শিক্ষার্থীদের ভবিষ্যতের কথা ভেবে আন্দোলন তুলে নিয়েছেন। তাহলে স্কুল খুলতে আর কোনও বাধা নেই। নিহত দুই ছাত্রের স্মরণে বুধবার সন্ধ্যায় মোমবাতি মিছিল হয়। গ্রামবাসী থেকে পড়ুয়া সবাই অংশ নেয় মিছিলে। দাড়িভিট থেকে মাঠপাড়া হয়ে দোলঞ্চা নদীর পাড়ের শ্মশান পর্যন্ত যায় মিছিল। আর মিছিল শেষে নিজেদের সিদ্ধান্তের কথা ঘোষণা করেন বাদল বর্মন ও নীলকমল সরকার।