বোসবাড়ির ঐতিহ্যবাহী পারিবারিক বারোয়ারি পুজো

0
155

নিতান্তই পারিবারিক পুজো নাকি বারোয়ারি পুজো, এক কথায় বোস পরিবারের বারোয়ারি পুজো। রাজপুর কোদালিয়া এলাকার বোস পরিবারের সদস্যরা মিলে শুরু করেছিলেন এই পুজো। ধীরে ধীরে ওই এলাকার সমস্ত বাসিন্দারাও এই পুজোতে যোগদান করতে শুরু করেন। এই বাড়ির পুজোর ছত্রে ছত্রে লুকিয়ে আছে পরাধীন ভারতে বিপ্লবী আন্দোলনের ইতিহাস। একসময় বিপ্লবী শরৎ বোস নিয়মিত আসতেন এই বাড়ির পুজোতে। তবে পুজোর বয়স ঠিক কত তা সঠিকভাবে বলতে পারেন না বোস পরিবারের বর্তমান সদস্যরা। যদিও সকলেই মেনে নেন বোস বাড়ির পুজো প্রায় ৪০০ বছরের বেশি প্রাচীন।

বর্তমানে এই পরিবারের অনেকেই এখন অন্যত্র বসবাস করলেও কৌলিন্য হারায়নি এই পারিবারিক বারোয়ারি পুজোর। প্রথা মেনে এবারও মন্ডপ সাজানো রয়েছে খড়ের চালের ছাউনি দিয়ে। প্রতিবছরই নতুন করে খড় দিয়ে ছাউনি দেওয়া হয় দুর্গা মন্ডপে৷ আগে অষ্টমী ও নবমীতে বলি দেওয়া হত, বর্তমানে অবশ্য সেই রীতি উঠে গিয়েছে কালের নিয়মে। প্রতিবছরই রীতি মেনে মহালয়ার পরের দিন থেকেই শুরু হয়ে যায় রাজপুর কোদালিয়া এলাকার বোস পরিবারের পুজো। আগে এলাকার বিধবা মহিলারা ধুনো পুজো করতেন৷ এখন অবশ্য আর সে চল আর নেই। অষ্টমীর দিন অঞ্জলি দিতে প্রচুর মানুষ ভিড় করেন এখনও৷ কাটামাটি খেলা এই পুজোর অন্যতম বৈশিষ্ট্য৷ এখনও প্রাচীন রীতি মেনেই প্রতিমা নিরঞ্জন হয় কাঁধে চাপিয়ে।