হরিণ হত্যায় ৫ বছর জেল সলমনের

0
233

কৃষ্ণসার হরিণ হত্যা মামলায় পাঁচবছর জেল হল সলমন খানের। সেইসঙ্গে ১০ হাজার টাকা জরিমানাও করা হয়েছে। তাঁর সহ অভিযুক্ত সইফ আলি খান, সোনালি বেন্দ্রে, নীলম এবং তাব্বুকে অভিযোগ থেকে রেহাই দেওয়া হয়েছে। এখন সালমানকে যোধপুর জেলে পাঠানো হবে। তাঁর তরফে আপিল করা হলেও তা করতে হবে হাইকোর্টে। ফলে বৃহস্পতিবার তাঁরে থাকতে হচ্ছে জেলেই। রায় ঘোষণার সময় অভিনেতারা আদালতে হাজির ছিলেন। ছিলেন সলমনের বোন আলভিরা ও অর্পিতা। মামলা কুড়ি বছর পুরানো। ১৯৯৮ সালের ১ অক্টোবর যোধপুরে হাম সাথ সাথ হ্যায় ছবির আউটডোর শ্যুটিংয়ে গিয়ে সলমন খান দুটি কৃষ্ণসার হরিণকে গুলি করে মেরে ফেলেন বলে অভিযোগ ওঠে। তাঁর সঙ্গেই অভিযুক্ত হন সইফ আলি খান, তাব্বু, সোনালি বেন্দ্রে। তাঁরা সলমনের সঙ্গে তাঁর গাড়িতে ছিলেন। কানকানি গ্রামের ঘটনা। তাঁদের সবার বিরুদ্ধে বন্যপ্রাণী সংরক্ষণ আইনে মামলা করা হয়েছে। ব্ল্যাক বাক বা কৃষ্ণসার হরিণ ভারতে অতি বিপন্ন প্রাণী বলে ঘোষিত। কানকানি গ্রাম বিষ্ণোই প্রধান। বিষ্ণোইরা কৃষ্ণসারের পুজো করেন। গুলির শব্দ শুনে তাঁরা বেরিয়ে এসেছিলেন। সলমন যে জিপসিটি চালাচ্ছিলেন, সেটির পিছু ধাওয়া করেন। সলমনরা পালিয়ে যান। হরিণের দেহাবশেষ সেখানেই পাওয়া যায়।