বৈঠকের আগে আসছেন না অমিত শাহ

0
397

আদালতের নির্দেশের পরেই বদলে গেল অবস্থান। শনিবার, রাজ্যে আসছেন না বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি অমিত শাহ। বুধবার প্রশাসনের সঙ্গে বৈঠকের পরে অমিতের সফরসূচি নিয়ে চূড়ান্ত সিদ্ধান্ত নেওয়া হবে বলে বিজেপি সূত্রে জানানো হয়েছে। এরআগে শুক্রবার বেলা ১টা নাগাদ দিল্লিতে সাংবাদিকের মুখোমুখি হয়ে বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি জানান, বাংলায় বিজেপির রথযাত্রা হবেই। শুক্রবার নয়, শনিবার রাজ্য আসবেন তিনি। সভাও হবে বলে জানান অমিত শাহ। তবে, সেই সময়ই জানিয়ে রেখেছিলেন সবকিছুই হবে আদালতের নির্দেশ মতো।

এদিকে, কোচবিহারে অমিত শাহের সভার জন্য পুরোপুরি প্রস্তুত ছিল রাজ্য বিজেপি। এই পরিস্থিতিতে সভা বাতিল হলে কর্মীদের মনোবল নষ্ট হবে বলে আশঙ্কা ছিল বিজেপি নেতৃত্বের। তাই রাজ্য বিজেপি চেয়েছিল, আদালত যেহেতু মামলাটি গ্রহণ করেছে তাই সূচি মেনে সভা করুন অমিত শাহ। শুক্রবার সকালে অমিত শাহ ও রাজ্য বিজেপি সভাপতি দিলীপ ঘোষের মধ্যে ফোনে কথা হয়। এরপরেই দিল্লিতে সাংবাদিক বৈঠক করে অমিত শাহ কার্যত মুখ্যমন্ত্রীকে চ্যালেঞ্জ ছুড়ে ঘোষণা করেন, বাংলায় রথযাত্রা করবেই বিজেপি। শুক্রবারের সভায় উপস্থিত না থাকলেও, শনিবার রাজ্যে আসবেন বলেও জানিয়ে দেন অমিত। কিন্তু চিত্রটা বদলে যায়, শুক্রবার সন্ধেয়। কলকাতা হাইকোর্টের ডিভিশন বেঞ্চ নির্দেশ দেয় ১২ ডিসেম্বর, বুধবার বিজেপির ৩ সদস্যের প্রতিনিধি দলের সঙ্গে আলোচনা করতে হবে রাজ্যের মুখ্যসচিব, স্বরাষ্ট্র সচিব ও ডিজিকে। এর কিছুক্ষণ পরেই বিজেপির কেন্দ্রীয় নেতৃত্ব জানিয়ে দেন, শনিবার রাজ্যে আসছেন না অমিত শাহ। এবার কবে, তিনি আসবেন, তা নির্ভর করেছে ১২ তারিখের আলোচনা কোনদিকে গড়ায় তার উপর।

সাত তারিখের রথযাত্রার অনুমিত না পেয়ে বিজেপি যে অত্যন্ত ক্ষুব্ধ সাংসবাদিক বৈঠকের শুরু থেকেই সেটা বুঝিয়ে দেন বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি। তিনি অভিযোগ করেন, পশ্চিমবঙ্গে গণতন্ত্রের হত্যা হচ্ছে। একই সঙ্গে তিনি গত পঞ্চায়েত নির্বাচনের খতিয়ান তুলে ধরেন। তিনি অভিযোগ করেন, নির্বাচনে বিরোধীদের মনোনয়ন পেশ করতে দেয়নি তৃণমূল। যার ফলে আদালতে হোয়াটস অ্যাপে মনোনয়ন পত্র পেশ করার নির্দেশ দেয়। রাজ্যের পঞ্চায়েত নির্বাচনে ৩৫ শতাংশ আসন বিনা প্রতিদ্বন্দ্বিতায় জিতেছে তৃণমূল। অমিত শাহর অভিযোগ, রাজনৈতিক সন্ত্রাসে বাম জমানাকেও ছাড়িয়ে গিয়েছে বর্তমান রাজ্য সরকার। পাশাপাশি পরিসংখ্যান দিয়ে তিনি বলেন, রাজনৈতিক হিংসায় এরাজ্য প্রথম।
আদালতের অনুমতি নিয়ে রথযাত্রা পশ্চিমবঙ্গে হবে বলে বারবার জানান অমিত। রথযাত্রা হলে পশ্চিমবঙ্গে পরিবর্তনের জোয়ার উঠবে। সেই ভয়ে অনুমতি দেওয়া হচ্ছে না বলেও অভিযোগ তাঁর। রথযাত্রা হবেই, দরকার হলে তাঁর দল সুপ্রিম কোর্টে যাব বলে জানান বিজেপির সর্বভারতীয় সভাপতি। রথ আটকে জনতাকে সামলানো যাবে না বলেও মন্তব্য করেন তিনি। ২০১৯-এ এ রাজ্যে পদ্ম শিবির সংখ্যাগরিষ্ঠতা পাবে বলে মত অমিতের। একই সঙ্গে রাজস্থানেও তাঁরা জয় পাবেন বলে আশা প্রকাশ করেন বিজেপি সভাপতি।