ফের স্কুল বন্ধের হুমকি

0
92

সোমবার থেকে সম্পূর্ণ খুলে গেল উত্তর দিনাজপুরের ইসলামপুর ব্লকের বহু চর্চিত দাড়িভিট উচ্চ বিদ্যালয়। তবে, ধৃত গ্রামবাসীরা মুক্তি না পেলে, ১৪ নভেম্বর থেকে ফের স্কুলের গেটে তালা বন্ধ করে দেওয়ার হুমকি দিলেন দাড়িভিট কাণ্ডে মৃত ছাত্র রাজেশের বাবা নীলকমল সরকার। এমনকী, দিল্লিতে সংসদের সামনে ধরনা অবস্থানে বসারও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। স্কুল খুলতে দিলেও, ছাত্র মৃত্যুর ঘটনার সিবিআই তদন্তের দাবিতে গেটের বাইরে ধরনামঞ্চ তৈরি করে লাগাতার অবস্থান আন্দোলন শুরু করেছেন মৃত ছাত্রদের আত্মীয় সহ স্থানীয়রা। এদিকে, দাড়িভিট নিয়ে মানবাধিকার কমিশনের কাছে রিপোর্ট তলব করেছে কালকাতা হাইকোর্ট।

পুলিসের গুলিতেই স্কুলের দুই প্রাক্তন ছাত্র রাজেশ সরকার ও তাপস বর্মনের মৃত্যু হয়েছে এই অভিযোগে ঘটনায় সিবিআই তদন্তের দাবি জানিয়ে আন্দোলনে নেমেছেন দাড়িভিট গ্রামের বাসিন্দারা। পাশাপাশি, ঘটনায় জড়িত সন্দেহে পুলিস যে কজন গ্রামবাসীকে গ্রেফতার করেছে, তাঁদের নিঃশর্ত মুক্তি না দিলে সংসদ ভবনের সামনে অবস্থান ও অনশন আন্দোলনে বসারও হুঁশিয়ারি দিয়েছেন তাঁরা।

নীলকমল সরকার জানিয়েছেন, যতদিন এই ঘটনায় সিবিআই তদন্তের নির্দেশ দেওয়া না হয়, ততদিন লাগাতার অবস্থান আন্দোলন চালিয়ে যাবেন তাঁরা। কোনও ভাবেই রাজ্য সরকারের সিআইডি তদন্তের নির্দেশ মানবেন না বলেও জানিয়ে দিয়েছেন তিনি। শুধু তাই নয়, মঙ্গলবার ধৃত গ্রামবাসীরা মুক্তি না পেলে ১৪ নভেম্বর থেকে ফের স্কুল বন্ধ করে দেওয়া হবে বলেও হুমকি দেন নীলকমল সরকার। নিহত ছাত্র তাপস বর্মনের মা মঞ্জু বর্মন জানিয়েছেন, তাঁদের একমাত্র দাবি, ছেলের মৃত্যুর ঘটনার সিবিআই তদন্ত। সিআইডি তদন্তকে তাঁরা কোনও গুরুত্ব দিচ্ছেন না।

এদিকে, দাড়িভিট নিয়ে মানবাধিকার কমিশনের কাছে রিপোর্ট তলব করেছে কালকাতা হাইকোর্ট। দাড়িভিট স্কুলের ঘটনায় মানবাধিকার কমিশন যে তদন্ত করেছে, তার রিপোর্ট চেয়েছে তপব্রত চক্রবর্তীর সিঙ্গল বেঞ্চ। এএসজি কৌশিক চন্দ্রকে সাতদিনের মধ্যে রিপোর্ট জমা দেওয়ার নির্দেশ দিয়েছে হাইকোর্ট।

স্কুল খোলায় খুশি ছাত্রছাত্রী থেকে শিক্ষকেরা। কিন্তু অভিশপ্ত ২০ সেপ্টেম্বরের আতঙ্কের ছাপ এখনও রয়েছে স্কুল চত্বরে। এদিন, ছাত্রছাত্রীদের উপস্থিতির হারও ছিল কম।