ব্রণ তাড়াতে ঘরোয়া উপায়

0
184

ত্বকের ঔজ্জ্বল্য এবং সৌন্দর্য নষ্ট করে দেয় ব্রণ। সাধারণত টিনেজারাই ব্রণ ও তার দাগ নিয়ে বেশি ভোগে। এই সমস্যা মেটাতে কিছু ঘরোয়া পদ্ধতি অবলম্বন করতে পারেন। এতে কোনও পার্শ্ব প্রতিক্রিয়ারও সম্ভাবনাও কম হয়।
ব্রণ ও ব্রণর দাগ তোলার পাঁচটি ঘরোয়া উপায়
১. মুলতানি মাটি- ত্বকে অতিরিক্ত তেলতেলে ভাবের ফলে ব্রণর সমস্যা দেখা দেয়। এ সমস্যা থেকে মুক্তি পেতে মুখে মুলতানি মাটি জলের সঙ্গে মিশিয়ে লাগাতে পারেন। মুলতানি মাটি ত্বকের অতিরিক্ত তেল নিঃসরণ বন্ধ করতে সাহায্য করে।
২. শশার রস, চালের গুঁড়ো ও মধু- শশার রস মুখে ব্রণ দূর করতে খুবই কার্যকর। এ ছাড়া স্ক্রাব হিসেবে ব্যবহার করতে চাইলে এর সঙ্গে চালের গুঁড়া মিশিয়ে নিলেই হবে। যাদের মধুতে অ্যালার্জি নেই তাঁরা সামান্য মধুও মিশিয়ে নিতে পারেন এই মিশ্রণে। সপ্তাহে দুই দিন এই প্যাক ব্যবহার করলে ত্বক পরিষ্কার হবে। ব্ল্যাকহেডস ও হোয়াইটহেডস দূর হয়ে যাবে। ব্রণ থাকলে স্ক্রাব করা যাবে না।
৩. কাঁচা হলুদ এবংচন্দনকাঠের গুঁড়ো- কাঁচা হলুদ এবং চন্দনকাঠের গুঁড়ো ব্রণর জন্য খুবই কার্যকর দুটো উপাদান। সমপরিমাণ কাঁচা হলুদ বাটা এবং চন্দন কাঠের গুঁড়ো একসাথে পরিমাণ মত জল দিয়ে মেশাতে হবে। তারপর মিশ্রণটি ব্রণ আক্রান্ত জায়গায় লাগিয়ে রেখে কিছুক্ষণ পর শুকিয়ে গেলে ঠান্ডাজল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে। এই মিশ্রণটি ব্রণ দূর করার সঙ্গে ব্রণর দাগও দূর করে।
৪. তুলসি পাতার রস- ব্রণর জন্য তুলসি পাতার রস খুবই উপকারী। শুধুমাত্র তুলসি পাতার রস ব্রণ আক্রান্ত অংশে লাগিয়ে রেখে শুকিয়ে যাওয়া পর্যন্ত অপেক্ষা করতে হবে। এরপর হালকা গরম জল দিয়ে মুখ ধুয়ে ফেলতে হবে।
৫. দারচিনি গুঁড়ো ও গোলাপ জল- গোলাপজলের নিয়মিত ব্যবহারে ব্রণর দাগ কমে যায়। দারচিনি গুঁড়োর সঙ্গে গোলাপজল মিশিয়ে মিশ্রণ তেরি করতে হবে। এই মিশ্রণটিকে ব্রণর উপর লাগিয়ে ২০ মিনিট পর ধুয়ে ফেলুন। এতে ব্রণর সংক্রমণ অনেকটাই কমে যায়।