যোগিন্দর শর্মার হাত ধরেই ২০০৭ সালে বিশ্ব টি-টোয়েন্টির প্রথম আসরে শিরোপা জিতেছিল ভারত। ফাইনাল ম্যাচে ভারতের বিপক্ষে ছিল পাকিস্তান। ম্যাচের শেষ ওভারে মাত্র ৬ রান খরচ করে, দলকে এনে দিয়েছিলেন ৫ রানের জয় এবং বিশ্বকাপ শিরোপা। খেলা ছেড়ে হরিয়ানা পুলিশের বড় কর্তা হিসেবে যোগ দিয়েছিলেন প্রাক্তন এই পেসার। এখন ডেপুটি সুপার। আইসিসি শুক্রবার তাঁকে স্যালুট ঠুকেছে। পুলিশে থাকায় এখন যোগিন্দরের ব্যস্ততার শেষ নেই। করোনাভাইরাস মহামারী থেকে বাঁচতে সাধারণ মানুষকে সচেতন করতে হচ্ছে। বাঁচানোর খাতিরেই তাঁদের রাখতে হচ্ছে ঘরের মধ্যে। প্রয়োজনে হতে হচ্ছে কঠোর। করোনার বিপক্ষে লড়াইটা মাঠে থেকেই করতে হচ্ছে ৩৬ বছর বয়সী সাবেক এ ক্রিকেটারকে। আইসিসির অফিশিয়াল টুইটারে তাই যোগিন্দরের দুটি ছবি পোস্ট করা হয়। প্রথম ছবিতে ২০০৭ বিশ্বকাপ ফাইনালে সতীর্থরা তাঁকে জড়িয়ে ধরছেন। পরের ছবিতে তিনি পুলিশ। ক্যাপশনে লেখা হয়েছে, ২০০৭, টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপের নায়ক। ২০২০, আসল জগতের নায়ক। যোগিন্দর টুইটারে লিখেছিলেন, ‘করোনাভাইরাসের একমাত্র ওষুধ হচ্ছে প্রতিরোধ। তাই সবাই ঐক্যবদ্ধ হয়ে এই মহামারী পরিস্থিতির বিরুদ্ধে লড়তে হবে। দয়া করে আমাদের কাজে সহযোগিতা করুন।’