করোনা মোকাবিলায় ২০ লক্ষ টাকা দান করেছিল মোহনবাগান ক্লাব। এবার এগিয়ে এল চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী ক্লাব ইস্টবেঙ্গলও। এই মরসুমে ইস্টবেঙ্গলের শতবর্ষ, এরমধ্যেই করোনার থাবা পড়েছে দেশজুড়ে। ফলে বছরভর নানান অনুষ্ঠানের কর্মসূচি নিয়েছিল ক্লাব। তবে আপাতত করোনা ভাইরাস মোকাবিলায় রাজ্য সরকারের পাশেই দাঁড়াতে চাইছে ইস্টবেঙ্গল ক্লাব। তাঁরা জানিয়ে দিল, করোনা মোকাবিলায় ইস্টবেঙ্গল দিতে চায় ৩০ লক্ষ টাকা। পাশাপাশি এও জানানো হয়েছে, যদি প্রয়োজন হয়, তবে আরও অর্থ সাহায্য করবে ক্লাব। ইস্টবেঙ্গলের অন্যতম শীর্ষকর্তা দেবব্রত সরকার জানিয়েছেন, ‘এর আগেও ইস্টবেঙ্গল ক্লাব দুর্গত মানুষের পাশে দাঁড়িয়েছে। এবারও তার ব্যতিক্রম হবে না। আপাতত করোনা মোকাবিলার জন্য মুখ্যমন্ত্রীর ত্রান তহবিলে ২০ লক্ষ টাকা দেওয়ার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। আগামী সপ্তাহের মধ্যেই এই টাকা তুলে দেওয়া হবে’। তিনি আরও জানিয়েছেন, এরপরেও ইস্টবেঙ্গল ক্লাব নিজেদের উদ্যোগে আরও অর্থ সংগ্রহ করে মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে দেওয়ার চেষ্টা করবে। মোট ৪০ লক্ষ টাকা দেওয়ার লক্ষ্যমাত্রা নেওয়া হয়েছে।
শুধু ইস্টবেঙ্গল-মোহনবাগান ক্লাবই নয়, ময়দানের অন্যান্য ক্লাব ও ফুটবলাররাও উদ্যোগী হয়েছেন টাকা দিতে। যেমন কলকাতা ময়দানের প্রাচীন ক্লাব এরিয়ান মুখ্যমন্ত্রীর ত্রাণ তহবিলে তুলে দিচ্ছে দুই লক্ষ টাকা। পাশাপাশি ময়দানের পরিচিত নাম প্রীতম কোটাল, প্রণয় হালদার, প্রবীর দাসের মতো বাঙালি ফুটবলার ৫০ লক্ষ টাকা করে দান করেছেন। ভবানীপুর ক্লাবের কোচ শঙ্করলাল চক্রবর্তী নিজে দুদিনের বেতন দান করেছেন।