লকডাউনের জেরে বন্ধ গণপরিবহন। ফলে ঘরবন্দি রাজ্যের মানুষ। এই পরিস্থিতিতে অসুস্থ ব্যক্তিদের হাসপাতালে নিয়ে যেতে সমস্যায় পড়ছেন অনেকেই। এম্বুলেন্স পাওয়া না গেলে বেশিরভাগ লোককেই প্রাইভেট গাড়ির ওপর ভরসা করতে হয়। কিন্তু লকডাউনের জন্য গাড়িচালকরা নিজেদের গাড়ি রাস্তায় বের করতে চাইছেন না। বয়স্ক ব্যক্তিদের পাশাপাশি প্রসূতিদের নিয়ে তাই চিন্তায় রয়েছেন অনেক পরিবার। এই পরিস্থিতিতে মানুষের পাশে এসে দাঁড়াল বারাসত জেলা পুলিশ। প্রসূতি মায়েদের যাতে সময়মত হাসপাতাল বা নার্সিংহোমে পৌঁছতে সমস্যা না হয় তার জন্য চালু করা হয়েছে একটি হেল্পলাইন নম্বর। এই নম্বরে ফোন করলেই এম্বুলেন্স বা গাড়ি নিয়ে ওই প্রসূতির বাড়ি পৌঁছে যাবে বারাসত জেলা পুলিশের কর্মীরা। এরপর তাঁদের হাসপাতালে বা নার্সিংহোমে পৌঁছে দেবে এই লকডাউনের মধ্যে। বারাসত জেলা পুলিশ সুপার অভিজিৎ বন্দ্যোপাধ্যায় জানিয়েছেন, এই করোনা ভাইরাসের প্রকোপে সাধারণ মানুষের ঘর থেকে বেরোনো নিষেধ। লকডাউনের মধ্যেই যদি কোনও প্রসূতি মায়ের প্রসব যন্ত্রণা ওঠে, বা কাউকে নরমাল চেকিংয়ে হাসপাতালে যেতে হয়, তাঁদের জন্যই পুলিশের এই উদ্যোগ। তিনি আরও জানান, বারাসত পুলিশ জেলার অন্তর্গত সমস্ত থানা এলাকাতেই এই পরিষেবা পাওয়া যাবে। পুলিশের হেল্পলাইন নম্বরটি হল, ৬২৯২২১২৩৭৮