প্রাথমিক শিক্ষকের চাকরি করে দেওয়ার নাম করে শিক্ষিত বেকার যুবক, যুবতীদের কাছ থেকে লক্ষ লক্ষ টাকা আত্মসাৎ করার অভিযোগ উঠল পটাশপুর থানার অমর্ষি হাই স্কুলের এক গ্রুপ ডির কর্মীর বিরুদ্ধে। ঘটনাটি ঘটেছে, এগরা থানার শ্যমহরিবার গ্রামে। ২০১৪ সালে এগরা থানার বাসুদেবপুর গ্রামের রাধাকৃষ্ণ জানা তার পাশের গ্রাম – শ্যামহরিবার গ্রামের গৌতম দাস ও তার ভাই দিলীপের কাছ থেকে চাকরির নামে ১২ লক্ষ ২০ হাজার টাকা নেয়। একইভাবে সুকুমার জানার ভাইপোকে প্রাইমারিতে চাকরির নামে ৫ লাখ টাকা আত্মসাৎ করে। চাকরি প্রার্থীরা বারবার তাগাদা দেওয়ায় রাধাকৃষ্ণ গৌতমবাবু ও সুকুমারবাবুকে ৩ লক্ষ, ২ লক্ষ ৭০ হাজার, আবার ১ লক্ষ ৫০ হাজার টাকার দুজনকেই চেক লিখে দেন। কিন্তু চেক ব্যাঙ্কে চেক বাউন্স হয়ে যায়। এরপর চাকরি প্রার্থী গৌতম দাস এবং সুকুমার দাস কাঁথি আদালতে মামলা করেন। আপাতত রাধাকৃষ্ণ এলাকা থেকে বেপাত্তা। স্কুল কিংবা বাড়ি দেখা মিলছে না কোনও জায়গাতেই।