পাণ্ডিয়ার সৌজন্যে ১-০, খেল দেখালেন ধোনি

0
82

বৃষ্টি-বিঘ্নিত ম্যাচে ডাকওয়ার্থ লুইস পদ্ধতিতে ঘরের মাঠে অস্ট্রেলিয়াকে ২৬ রানে হারিয়ে দিল টিম ইন্ডিয়া। পাঁচ ম্যাচের সিরিজ ১-০ এগিয়ে গেল বিরাট বাহিনী।
রবিবার চেন্নাইয়ের এম এ চিদম্বরম স্টেডিয়ামে টস জিতে প্রথম ব্যাট করার সিদ্ধান্ত নেয় ভারত। নির্ধারিত ৫০ ওভারে সাত উইকেট হারিয়ে ২৮১ রান তোলে মেন ইন ব্লুজরা। কিন্তু ভারত-অষ্ট্রেলিয়া ম্যাচে ভিলেন হয়ে দাঁড়ায় প্রবল বৃষ্টি। বৃষ্টি থামলে ডাকওয়ার্থ-লুইস পদ্ধতিতে অস্ট্রেলিয়ার টার্গেট দাঁড়ায় ২১ ওভারে ১৬৪ রান। কিন্তু, ভারতীয় স্পিনের জোড়া ফলা কুলদীপ যাদব ও ইউবেন্দ্র চ্বাহলের আক্রমণের সামনে ধসে যায় ক্যাঙারু ব্রিগেড। দুই স্পিনার ৫ উইকেট তুলে নেন। এছাড়াও হার্দিক পাণ্ডিয়া নেন ২ উইকেট। জসপ্রীত বুমরাহ ও ভূবনেশ্বর কুমার নেন একটি করে উইকেট। অস্ট্রেলীয় ব্যাটসম্যানদের মধ্যে মাত্র তিনজন দুই অঙ্কের ঘরে পৌঁছন। ওপেনার ডেভিড ওয়ার্নার করেন ২৫, গ্লেন ম্যাক্সওয়েল করেন ৩৯ এবং জেমস ফকনার করেন অপরাজিত ৩২ রান। কিন্তু, অধিনায়ক স্টিভ স্মিথ সহ বাকিরা কোনও অবদান রাখতে পারেননি। নিয়মিত ব্যবধানে ভারতীয় বোলাররা উইকেট তুলে নেওয়ায় চাপে পড়ে যায় অস্ট্রেলিয়া। শেষমেশ ২১ ওভারে ৯ উইকেট হারিয়ে ১৩৭ রানেই আটকে যায় স্মিথ-বাহিনী। এদিকে প্রথমে ব্যাট করে শুরুতেই পরপর উইকেট হারিয়ে চাপে পড়ে যায় ভারতও। দ্রুত ফিরে যান অজিঙ্ক রাহানে, অধিনায়ক বিরাট কোহলি ও মণীশ পাণ্ডে। রোহিত শর্মা ও কেদারের জুটির ওপর ভর করে ঘুরে দাঁড়ানোর চেষ্টা করে ভারত। কিন্তু হুক করতে গিয়ে সহজ ক্যাচ দিয়ে ফিরে যান রোহিত। পরে, কেদার যাদবের সঙ্গে ইনিংস পুনর্গঠনের কাজ শুরু করেন মহেন্দ্র সিংহ ধোনি। হার্দিক পাণ্ডিয়া ও মহেন্দ্র সিংহ ধোনির লড়াইয়ের সুবাদে ১১ রানে ৩ উইকেট হারানোর পরেও ঘুরে দাঁড়ায় ভারতও। হার্দিক ৬৬ বলে ৮৩ রানের ঝোড়ো ইনিংস খেলেন। এই জুটিতে যোগ হয় ১১৮ রান। ধোনি করেন ৭৯ রান। হার্দিক ফিরে যাওয়ার পর ধোনির সঙ্গে জুটি গড়েন ভুবনেশ্বর কুমার। তিনি ৩২ রানে অপরাজিত থাকেন। নির্ধারিত ৫০ ওভারে ৭ উইকেটে ২৮১ রান করে ভারত। ম্যাচের সেরা হন হার্দিক পাণ্ডিয়া।