আশঙ্কাজনক অবস্থায় করোনা আক্রান্ত ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী বরিস জনসনকে ইন্টেনসিভ কেয়ার ইউনিটে নিয়ে যাওয়া হয়েছে। তিনি খুবই অসুস্থ, তাঁর ভেন্টিলেটারের প্রয়োজন হতে পারে। তাঁর অক্সিজেনের অভাব দেখা দিয়েছে। তবে বরিস জনসনের বয়স ৫৫ বছর। ৬০ বছরের উপরের লোকজনের তুলনায় তাঁর সেরে ওঠার সম্ভাবনাই বেশি। আনুষ্ঠানিকভাবে না হলেও তাঁর জায়গায় কাজ চালানোর জন্য বিদেশমন্ত্রী দোমিনিক রাবকে নিযু্ক্ত করা হয়েছে। গত ২৭ মার্চ নিজের অসুস্থতার কথা জানিয়েছিলেন জনসন। রবিবার রাতে প্রবল জ্বর নিয়ে তাঁকে মধ্য লন্ডনের একটি হাসপাতালে ভর্তি করা হয়। গত ১০ দিনে তাঁর জ্বর কমেনি। কাশিও সারেনি। বহু ক্ষেত্রে দশদিন পর করোনা আক্রান্তদের নিউমোনিয়া দেখা দেয়। জনসনের অসুস্থতার খবরে মার্কিন ডলারের তুলনায় ব্রিটিশ পাউন্ডের দর ১ সেন্ট কমে গিয়েছে। ব্রিটিশ প্রধানমন্ত্রী দ্রুত আরোগ্য কামনা করেছেন বিশ্বের সব নেতাই। বরিস জনসন ছাড়াও ব্রিটেনের স্বাস্থ্যমন্ত্রী এবং জনসনের অন্তঃসত্ত্বা স্ত্রীরও করোনা ধরা পড়েছে।