স্কুলের ছাত্রীদের সঙ্গে অশালীন আচরণ করেন প্রধান শিক্ষক। এই অভিযোগে ওই প্রধান শিক্ষককে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখল পড়ুয়ারা। চাঞ্চল্যকর এই ঘটনাটি ঘটেছে বাঁকুড়ার সিমলাপাল থানা এলাকার মণ্ডলগ্রাম গ্রাম পঞ্চায়েতের উন্তিশোল বনমালি জুনিয়র হাইস্কুলে। অরুণকুমার সিংহ মহাপাত্র নামে ওই শিক্ষকের বিরুদ্ধে অভিযোগ, ক্লাস চলাকালীন প্রায়ই শ্রেণী কক্ষ থেকে ছাত্রদের বাইরে বের করে দিয়ে ছাত্রীদের সঙ্গে অশালীন আচরণ করেন। এছাড়াও নির্দিষ্ট ক্লাসের পরিবর্তে ছাত্রীদের গান করতে বলেন, এমনকি নাবালিকা ছাত্রীদের শরীরে হাতও দেন ওই প্রধান শিক্ষক। বারবার এই ঘটনার প্রতিবাদ করলেও কোনও সুরাহা হয়নি বলেই অভিভাবকদের দাবি। বৃহস্পতিবার একই ঘটনা ঘটলে প্রতিবাদ করে পড়ুয়ারা। তাঁরাই ওই প্রধান শিক্ষককে ধরে স্কুলের বাইরে একটি নিমগাছের সঙ্গে বেঁধে রাখে। খবর পেয়ে চলে আসে কয়েকজন অভিবাবকও। তাঁরাও অভিযুক্ত ওই প্রধান শিক্ষককে ঘিরে বিক্ষোভ দেখায়। পরে সিমলাপাল থানার পুলিশ এসে পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে আনে। যদিও এলাকায় যথেষ্ট উত্তেজনা ছড়ায় এই ঘটনার জেরে।

অষ্টম শ্রেণীর কয়েকজন ছাত্রী ঘটনার যথাসাধ্য বিবরণ দিতে গিয়ে বলে, ‘স্যার প্রায়ই ছেলেদের ক্লাস থেকে বের করে দিয়ে গান করতে বলেন। এমনকী গায়েও হাত দেন। এই ধরনের ঘটনা সাম্প্রতিক সময়ে শুরু হয়েছে। আমরা আপত্তি করলেও তিনি শোনেননি’। একই অভিযোগ ছাত্রদেরও। এরপরই তাঁরা অভিযুক্ত প্রধান শিক্ষককে গাছের সঙ্গে বেঁধে রাখে। খাতড়ার সহকারি বিদ্যালয় পরিদর্শক (মাধ্যমিক) অনিমেষ সৎপথি বলেন, ‘বিষয়টি জেলা স্কুল পরিদর্শককে জানানো হয়েছে। উনি তদন্তের নির্দেশ দিয়েছেন’। পরে পুলিশ এসে অভিযুক্ত শিক্ষককে পড়ুয়া ও অভিভাবকদের আক্রোশ থেকে উদ্ধার করে আটক করে থানায় নিয়ে যায়। ঘটনার তদন্ত শুরু করেছে পুলিশ। এই ঘটনায় অভিভাবকরা ওই শিক্ষকের দৃষ্টান্তমূলক শাস্তির দাবিতে সরব হয়েছেন।