করোনা ভাইরাসের প্রকোপে নাজেহাল গোটা বিশ্ব। এই পরিস্তিতিতে কার্যত মুখ থুবরে পড়েছে ফুটবল। তবে ফিফার তরফে জানিয়ে দেওয়া হল এই পরিস্থিতি থেকে ফুটবল বিশ্বকে টেনে তোলার ক্ষমতা ফিফার রয়েছে। এরজন্য অর্থের অভাব হবে না। করোনার জেরে বন্ধ সমস্ত দেশের ঘরোয়া ফুটবল লিগ। পাশাপাশি উয়েফা চ্যাম্পিয়ন্স লিগ, এফসি চ্যাম্পিয়ন্স লিগের খেলাও বন্ধ হয়ে রয়েছে। পিছিয়েছে ইউরো কাপ। ফলে বর্তমানে বিভিন্ন দেশের ফুটবল ফেডারেশন কী করবে সেটাই ভেবে পাচ্ছে না। বিপুল ক্ষতির মুখে পড়েছে ইউরোপের বিভিন্ন অভিজাত লিগে খেলা ক্লাবগুলি। জুভেন্তাস-বার্সার মতো ক্লাব আগেই জানিয়ে দিয়েছিল বেতন কাটা হবে ফুটবলারদের। ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগের মতো ধনী লিগের কর্মকর্তারাও আগামী শুক্রবার বৈঠকে বসছেন করনীয় কর্তব্য নিয়ে। অনেক দেশ থেকে খবর মিলছে ফুটবলাররা বেতন কাটা নিয়ে বিদ্রোহ শুরু করেছেন। আবার লিও মেসির নেতৃত্বে বার্সেলোনা ক্লাবের ফুটবলাররা জানিয়ে দিয়েছেন, সচেতন ফুটবলার হিসেবে তাঁরা মার্চ মাসের বেতন ৭০ শতাংশ কম নেবেন।


পুরো ঘটনায় চিন্তিত ফিফার পরিচালন পর্ষদ। তাঁরা ঠিক করেছে, খুব শীঘ্রই বিশ্বর ছয়টি ফুটবল কনফেডারেশনের কর্মকর্তাদের সঙ্গে আলোচনায় বসবে। বিভিন্ন দেশ বিশেষ করে ইউরোপীয় দেশগুলির বিভিন্ন ক্লাবের সামনে এখন অস্তিত্বরক্ষার লড়াই। এই পরিস্থিতিতে আশার বানী শুনিয়েছে ফিফা। তাঁরা জানিয়ে দিয়েছে অর্থের অভাব নেই, এখনই ভেঙে পড়বেন না। সূত্রের খবর, আসন্ন আলোচনায় ফিফার তরফে প্যাকেজ ঘোষণা করা হবে। প্রায় ৬ মিলিয়ন মার্কিন ডলার দিয়ে বিশ্বের ২১১টি দেশের ফুটবল ফেডারেশনকে অর্থ সাহায্য করা হবে। তবে পুরো ব্যাপারটাই পরিকল্পনার স্তরে রয়েছে। আগামী দিনে ফিফা কী প্যাকেজ ঘোষণা করে সেই দিকেই তাঁকিয়ে গোটা ফুটবল বিশ্ব।